আজ মঙ্গলবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ৭ আশ্বিন ১৪২৭           আমাদের কথা    যোগাযোগ

শিরোনাম

  প্রতিনিধি হইতে ইচ্ছুকরা ০১৭৪৭৬০৪৮১৫ নাম্বারে যোগাযোগ করুন।  

সাতক্ষীরায় বেকার যুবক-যুবতীদের কাছ থেকে হাতিয়ে নিচ্ছে লাখ লাখ টাকা


সাতক্ষীরায় বেকার যুবক-যুবতীদের কাছ থেকে হাতিয়ে নিচ্ছে লাখ লাখ টাকা

প্রকাশিতঃ রবিবার, ডিসেম্বর ৪, ২০১৬   পঠিতঃ 383859


সাতক্ষীরা শহরের পলাশপোল এলাকায় সদ্য গজিয়ে উঠা ট্রাস্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স লিমিটেডে চাকুরির প্রলোভন দেখিয়ে বেকার যুবক-যুবতীদের কাছ থেকে ১০ হাজার টাকা হারে জামানাত নিয়ে কৌশলে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি। আর প্রতিষ্ঠানের প্রতারণার ফাঁদে পা দিচ্ছে বেকার যুবক-যুবতীরা। খোঁজ নিয়ে যানা যায়, শহরের পলাশপোলস্থ স্পন্দন কালার ল্যাবের পেছনের বিশাল ভবন হাসিনা ভিলার দ্বিতীয় তলার পুরোটাই ভাড়া নিয়ে গত দেড় মাস আগে শুরু করা হয়েছে ট্রাস্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স লিমিটেড নামে একটি প্রতিষ্ঠানের কর্মকান্ড। ইতিমধ্যে জেলার বিভিন্ন এলাকায় নেয়া হয়েছে ওই প্রতিষ্ঠানের আরো ৬টি অফিস। এসব অফিসে চাকুরি দেয়ার নাম করে জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের উচ্চ শিক্ষিত ও অল্প শিক্ষিত বেকার তরুণ-তরুণীদের কাছ থেকে মাথাপিছু ১০ হাজার টাকা হারে জামানত নিচ্ছে বীমা কোম্পানিটি। এভাবে জেলার হাজার হাজার বেকার তরুণ-তরুণীদের চাকুরি দেয়ার নামে প্রতিষ্ঠানটি হাতিয়ে নিচ্ছে লক্ষ লক্ষ টাকা। সরেজমিনে গতকাল শনিবার সাতক্ষীরা শহরের জোনাল অফিসে গিয়ে দেখা গেল হুলস্থল কর্মযজ্ঞ চলছে সেখানে। অফিসে ঢুকেই মনে হলো এটি কোন বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস। কোন নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ছাড়াই দালালের মাধ্যমে অফিসে হাজির হয়েছে শত শত চাকুরি প্রত্যাশী তরুণ-তরুণী। যাদের অধিকাংশের বয়স ১৪ থেকে ৩০-এর মধ্যে। এরা বেশিরভাগই স্কুল-কলেজ পড়–য়া ছাত্র-ছাত্রী । অফিসের কোন কোন কক্ষে চলছে প্রতারণার কৌশল প্রশিক্ষণ। কিভাবে নিকটজনের কাছ থেকে টাকা সংগ্রহ করা যাবে। সাংবাদিকরা অফিসে ঢুকতেই মুহূর্তে খবর পৌঁছে যায় অফিস প্রাঙ্গনের সব কক্ষে। এ সময় কিছু চাকুরি প্রার্থী ও অফিসের কিছু কর্মকর্তা-কর্মচারী দ্রুত ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়। আবার অনেকেই বাথরুমে লুকিয়ে পড়েন ছবি তোলার হাত থেকে নিজেকে রক্ষা করতে। অফিসের জেইভিপি (জয়েন্ট এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট) জি,এম আব্দুল গফুর জানান, জোনাল অফিসটি গত ১ অক্টোবর থেকে ভাড়া নেয়া হয় এবং ১৪ অক্টোবর উদ্বোধন হয়। অফিসটি দুই বছরের জন্য ভাড়া নেয়া হয়েছে। এছাড়া গত ৩০ নভেম্বর জেলা শিল্পকলা একাডেমীতে এক অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু করে। তিনি আরও জানান, বর্তমানে অফিসটিতে ১৫১ জনের বেশি কর্মকর্তা-কর্মচারী রয়েছে। মাঠ পর্যায়ে কর্মরত রয়েছে সহস্রাধিকের উপর। ২০১৩ সালে ট্রাষ্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স লিমিটেড লাইসেন্স পায় এবং ২০১৪ সাল থেকে কার্যক্রম শুরু করে। অফিসটির প্রধান কার্যালয় ঢাকায়। সূত্র আরো জানায়, জি,এম আব্দুল গফুর অফিসটি নিয়ন্ত্রণ করে। তার অপকর্মেই মূলতঃ এ প্রতারণার জাল বি¯Íার হচ্ছে। গফুরের বাড়ি সাতক্ষীরা মুন্সিপাড়ায়। প্রতিদিনই ওই বীমায় যোগ দিচ্ছে শত শত যুবক-যুবতী। অফিসে হাজির হলেই সহজেই মিলছে চাকুরি। নিজের নামে, পরিবারের সদস্য বা আত্মীয়-স্বজনের নামে বিভিন্ন টাকার অংকের একটি বীমা পলিসি খুললেই চাকুরির নিয়োগ পত্র দেওয়া হচ্ছে। প্রথমে সব কঠিন শর্তগুলো গোপন রেখে তাদের নামে বীমা পলিসি করিয়ে নিয়োগ দেয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ করলেন কয়েকজন কর্মী। কিছু বুঝতে না দিয়েই কৌশলে একটি অঙ্গীকার নামায় নিয়োগ প্রাপ্ত কর্মীদের স্বাক্ষর করিয়ে নেয়া হচ্ছে। কর্মীদের পদ ও পদবী অনুযায়ী সর্বনিম্ন বাৎসরিক তিন হাজার থেকে বিশ হাজার টাকা (বীমা পলিসি করার নামে) গ্রহণ করে মাসিক নির্ধারিত বেতনে চাকুরি দেয়া শুরু করেছে প্রতিষ্ঠানটি। নিয়োগ কর্মীর চাকুরির বয়স কিছুদিন হলেই পলিসি করার টার্গেট বেঁধে দেয়া হচ্ছে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে এমনটি জানালেন এক মাসের বেতন পাওয়া কয়েকজন কর্মী। শুরুতেই নির্ধারিত মাসিক বেতনের প্রলোভন দেখিয়ে একটি মাত্র পলিসি করার কথা বলে নিয়োগ চূড়ান্ত করে। কর্মীদের মাসিক বেতনের পরিমাণ সর্বনিম্ন পাঁচ হাজার ও সর্বোচ্চ বিশ হাজার টাকা দেওয়ার ঘোষণা দিয়ে অভিনব প্রতারণা চলছে। কিন্তু কোন বীমা আইনে বীমা কর্মীদের মাসিক নির্দিষ্ট পরিমাণ বেতন দেয়ার বিধান নেই বলে জানা গেছে। সাতক্ষীরা জোনাল অফিসের এএমডি (এ্যাসিসট্যান্ট ম্যানেজিং ডিরেক্টর) আব্দুল ওহাব দুলাল জানান, সর্বনিম্ন অষ্টম শ্রেণী পাশ হলে ও একটি বীমা পলিসি করলে এ প্রতিষ্ঠানে যে কেউ চাকুরি করতে পারবেন। শহরে বীমা কোম্পানির ব্যবসা করছেন পৌর সভার ট্রেড লাইসেন্স আছে কিনা জানতে চাইলে তিনি জানান, এটির কোন প্রয়োজন পড়ে না। নির্ধারিত বেতনের বিষয়ে তিনি বলেন, আমরা একটি কর্মীকে ৩ মাস পর্যবেক্ষনে রাখবো। পরে সে যদি টার্গেট পূরণে ব্যর্থ হয় তাকে চাকুরি থেকে বাদ দেয়া হবে। আইআরডিএ (ইন্স্যুরেন্স ডেভেলপমেন্ট রেগুলেটরী অথরিটি) অর্থাৎ বীমা নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর আইনের নিয়ম অনুযায়ী প্রত্যেক বীমা কর্মীর ন্যূনতম শিক্ষাগত যোগ্যতা এসএসসি পাশ হওয়ার কথা থাকলেও তার কোন তোয়াক্কা না করেই প্রতারনার মাধ্যমে সপ্তম-অষ্টম শ্রেণী পাশ বা প্রাইমারী গন্ডি পার না হওয়া ছেলে-মেয়েরাও পদ ও পদবী অনুযায়ী নির্ধারিত টাকা জমা দিলে চাকুরি দিচ্ছে। গত দেড় মাসে জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের শত শত বেকার যুবক-যুবতী এই খপ্পরে পড়ে সর্বশান্ত হচ্ছে।

মোঃ মেহেদী হাসান /


মন্তব্য করুন

কালীগঞ্জে সুপারি গাছ থেকে পড়ে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে সিয়াম!

কারাগার থেকে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র এহসান হাবিব সুমন এর খোলা চিঠি

এসএসসি পরীক্ষাঃ বাংলা দ্বিতীয় পত্রে বেশি নম্বর সহজেই...

যেকোন সময় ঘোষণা হতে পারে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটি

যশোরে এবার সরকারি চালসহ ঘাতক দালাল নিমূল কমিটির নেতা আটক

৫০ বছর ধরে দল করেও সুবিধা বঞ্চিত আ'লীগের প্রচার সম্পাদক নূরুল হক

যশোরের রাজগঞ্জে ৫৬ যুবকের উদ্যোগে ভাসমান সেতু র্নিমাণ

লালমনিরহাটে এক বিধবা মা বাইসাইকেল চালিয়ে ৪২ বছর স্বাস্থ্যসেবা দিচ্ছেন

কেশবপুরের শাহীনের সেই ভ্যানটি উদ্ধার, আটক তিনজন

নোংরা রাজনীতির শিকার যশোরের এমপি স্বপনের ছেলে শুভ

ব্যাচমেট হিসেবে সাইয়েমার পক্ষে সকলের কাছে ক্ষমা চাইলেন কেশবপুরের এসিল্যাণ্ড

নারী সহকারীর সঙ্গে ডিসির অশ্লীল ভিডিও ভাইরাল, সংবাদ না করার অনুরোধ

আমাদের নিউজ পোর্টাল আপনার কেমন লাগে ?

  খুব ভালো

  ভালো

  খুব ভালো না

  ভালো লাগে না

অফিস ঠিকানা  

আর এল পোল্ট্রি, উপজেলা রোড, কেশবপুর বাজার, যশোর।
মোবাইলঃ   ০১৭১৯২৮০৮২৭
ইমেইলঃ   info@kopotakkhonews24.com

প্রকাশক ও সম্পাদক 

মোঃ মাহাবুবুর রহমান (মাহাবুর)

মোবাইলঃ   ০১৭১৯২৮০৮২৭
ইমেইলঃ   info@kopotakkhonews24.com

সোশ্যাল মিডিয়ায় আমরা