আজ মঙ্গলবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬           আমাদের কথা    যোগাযোগ
Owner

শিরোনাম

  জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল কপোতাক্ষ নিউজের জন্য বাংলাদেশের প্রতিটি জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। আগ্রহী প্রার্থীরা ০১৭১৯২৮০৮২৭ নাম্বারে যোগাযোগ করুন।  

মন্ত্রীত্ব অগ্নিপরীক্ষা: স্বপন ভট্টাচার্যময় মহাকাব্য ও মনিরামপুরবাসীর প্রত্যাশা;পর্ব-১


মন্ত্রীত্ব অগ্নিপরীক্ষা: স্বপন ভট্টাচার্যময় মহাকাব্য ও মনিরামপুরবাসীর প্রত্যাশা;পর্ব-১

প্রকাশিতঃ শুক্রবার, জানুয়ারী ১১, ২০১৯   পঠিতঃ 200529


ছাত্র রাজনীতির শুরুতেই অগ্নিপরীক্ষা ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধ। প্রিয় মাতৃভূমিকে রক্ষার জন্য ভারতীয় আশ্রয় শিবিরে মুক্তিযোদ্ধাদের তদারকি, আশ্রয় নেওয়া সকলের দেখা শুনা করার জন্য বিরামহীন কর্মরত ভাবনার মাঝেও চিন্তা প্রিয় জন্মভূমিকে স্বাধীন করার জন্য এগিয়ে চলা বীর সৈনিকেরা কি অবস্থায় আছে। সে চিন্তা থেকেই মুক্তিযুদ্ধের কারণে আশ্রয় নেওয়া ভারতীয় শিবিরের ভাগ্য হারা মানুষ আর জন্মভূমি প্রিয় মনিরামপুর থেকে চলে যাওয়া সতীর্থদের পরামর্শে ভাগ্যকে হাতের মুঠোয় নিয়ে মনিরামপুরে যুদ্ধরত যোদ্ধাদের পরামর্শ, দিক নির্দেশনা ও অস্ত্র সংগ্রহের সহকর্মী হিসেবে আবারও মনিরামপুরে ফিরে আসেন স্বপন ভট্টাচার্য। কিন্তু নানান জটিলতা ও প্রতিকূল পরিবেশের কাছে মনিরামপুর পৌরশহর থেকেই বিদায় নেন এবং ভারতে ফিরে যান আবার।
 
দীর্ঘ নয় মাস সংগ্রামের পর স্বাধীনতা, যার অর্জনের ব্যয় ত্রিশ লাখ তরতাজা জীবন, দুলাখ মা বোনের ইজ্জত। সর্বহারা মানুষের সাথে বঙ্গবন্ধুর স্নেহ ধন্য বড় দাদার সাথে রাজনীতিতে আবারও সক্রিয় হন। ১৯৭৩ সালের সাধারণ নির্বাচনে বড়দাদা বর্তমান বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় প্রেসিডিয়াম সদস্য বাবু পিযূষ কান্তি ভট্টাচার্য বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের দলীয় মনোনয়ন পেয়ে মনিরামপুর-কেশবপুর আসন থেকে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী হলে সাধারণ মানুষের ভালবাসায় বিপুল ভোটে এমপি নির্বাচিত হন।
 
কিন্তু পরীক্ষা পিছু ছাড়েনি কখনও, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট কাল রাতে বঙ্গবন্ধুসহ স্বপরিবারে নিহত হলে আবার পালিয়ে বেড়ানোর সময় নেমে আসে।
 
বঙ্গবন্ধু হত্যার প্রতিবাদকারী মর্মে দীর্ঘদিন যাবত জেলের ঘানি টানতে হয়। কোন রকম ছাড়া পাবার পর পড়াশোনা শেষ করে মনোযোগ দেন ব্যবসায়। জীবনের সকল পরীক্ষায় পাশ করে সফলতা পেয়ে যান অতি দ্রুত সময়ই। তার মধ্যে ১৯৮৬ সালে আবারও বড়দাদা মনিরামপুর আসন থেকে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের মনোনয়ন পেলে ঝাপিয়ে পড়েন নির্বাচনে কিন্তু নানা চক্রান্ত এবং রাজনৈতিক প্রতিকুলতার কারণে সামান্য ভোটে পরাজিত হলে রাজনীতি বিমুখে নিজ ব্যবসাতে মন দেন।
 
১৯৯১ সালে বাংলাদেশের রাজনীতিতে সুস্থ ধারার হাওয়া বইতে শুরু করলে আবারও মনিরামপুরের মানুষের অনুরোধে ব্যবসায়ীক কারণে জেলা শহরে থাকাবস্থায় মনিরামপুরের রাজনীতিতে পূর্ণ যাত্রায় মনোনিবেশ করেন। নিজ অর্থায়নে মনিরামপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের অবহেলিত নেতাকর্মী সাহায্য সহানুভূতি এবং সাথে সাথে গড়ে তোলেন মনিরামপুর মহিলা ডিগ্রি কলেজের মত অসংখ্য প্রতিষ্ঠান। যার পৃষ্ঠপোষক হিসেবে অনেকের সাথে থেকে নেতৃত্বের আলো ছড়াতে ভুমিকা রেখেছেন।
 
১৯৯৬ সালের নির্বাচনের পর মনিরামপুরের তৎকালীন সাংসদের আচারণে অতিষ্ঠ মনিরামপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সর্বস্তরের নেতাকর্মীসহ জনগণ আওয়ামীলীগ থেকে মুখ ফেরাতে শুরু করলে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়ে আলাদা একটি শক্তি শালী গ্রুপ তৈরি করেন যার নেতৃত্ব আজকের পূর্ণ শক্তির নেতৃত্ব দানকারী মনিরামপুর উপজেলা আওয়ামীলীগ পরিবারের সবাই ছিলেন।
 
২০০১ সালের নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন চেয়ে বিমুখ গ্রুপের সকলের বিরুদ্ধে সেদিনের পরাজিত প্রার্থী দলীয় সভানেত্রীর কাছে নালিশ জানান দলের প্রতীকে ভোট না দেবার মত বিষয়ে।কিন্তু তৎকালীন সময়ে ব্যাপক ভোট বৃদ্ধি পেয়েও পরাজয়ের কারণ ছিল আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্র মর্মে সভানেত্রীর অনুগ্রহ আদায়ে সমর্থ হন তৎকালীন সাবেক সাংসদের বিপক্ষে অবস্থান নেওয়া আজকের মনিরামপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের নেতৃত্ব দানকারী নেতৃত্ব বল।
 
২০০২ সালের দিকে আওয়ামীলীগ সভানেত্রী যশোর জেলা আওয়ামীলীগের কমিটি ভেংঙ্গে মরহুম আইনজীবী ফরাজী শাহাদাৎ হোসেনকে আহবায়ক, মরহুম আলী রেজা রাজুকে এবং মরহুম এ,এস,এইচ,কে সাদেককে যথাক্রমে যুগ্ম আহবায়ক করে যশোর জেলা আওয়ামীলীগের কমিটির অনুমোদন দিলেও কমিটি থেকে বাদ পড়ে যান আজ যাকে নিয়ে মুল প্রবন্ধ লেখা সেই শ্রদ্ধাভাজন ব্যক্তিটি।
 
ঠিক কিছুদিন পর, সেদিনের দৈনিক জাতীয়, দৈনিক আঞ্চলিক পত্রিকাসহ সকল গণ মাধ্যমে নিউজ প্রকাশিত হয়েছিল এভাবে," শেখ হাসিনার বিশেষ সুপারিশ স্বপন ভট্টাচার্য চাঁদকে যশোর জেলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক কমিটিতে অন্তভূক্ত করার অনুরোধ "। (ভুল হলে মাপ করবেন)
 
আমার এবং মনিরামপুরবাসির অভিমত, মন্ত্রীত্ব অগ্নিপরিক্ষা। কথাটির বিশ্লেষণ একটি মহাকাব্য। যা সাহিত্যিক গণে ব্যথিত রচনা বা ব্যাখা করাটা প্রচন্ড দুঃসাহসিক।
 
কিন্তু কালজয়ী এ কথাটি বলেছেন সেই ২০০১ সাল পরবর্তী সময় ধরে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সভানেত্রী, চতুর্থ বারের মত শপথ নেওয়া বাংলাদেশের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্নেহ ধন্য, বিগত প্রায় বিশ বছর যাবত দলীয় প্রধানের কাছে পরিক্ষা দিয়ে সদ্য সমাপ্ত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রিয় উপজেলা মনিরামপুর তথা যশোর-৫ মনিরামপুর আসন থেকে নৌকা প্রতীক নিয়ে বিপুল ভোটে বিজয়ী জাতীয় সংসদের মাননীয় সদস্য এবং গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব প্রাপ্ত মাননীয় প্রতিমন্ত্রী, মনিরামপুরের আলোকিত পরিবারের কৃর্তী সন্তান বাবু স্বপন ভট্টাচার্য চাঁদ-এমপি।
 
(অসমাপ্ত)
 
বি,এম হাফিজুর রহমান হাফিজ,
সাংগঠনিক সম্পাদক-১,
১২ নং শ্যামকুড় ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ,
মনিরামপুর, যশোর।।

কামরুজ্জামান রাজু /


মন্তব্য করুন

কালীগঞ্জে সুপারি গাছ থেকে পড়ে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে সিয়াম!

কারাগার থেকে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র এহসান হাবিব সুমন এর খোলা চিঠি

যেকোন সময় ঘোষণা হতে পারে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটি

এসএসসি পরীক্ষাঃ বাংলা দ্বিতীয় পত্রে বেশি নম্বর সহজেই...

৫০ বছর ধরে দল করেও সুবিধা বঞ্চিত আ'লীগের প্রচার সম্পাদক নূরুল হক

যশোরের রাজগঞ্জে ৫৬ যুবকের উদ্যোগে ভাসমান সেতু র্নিমাণ

কেশবপুরের শাহীনের সেই ভ্যানটি উদ্ধার, আটক তিনজন

নোংরা রাজনীতির শিকার যশোরের এমপি স্বপনের ছেলে শুভ

লালমনিরহাটে এক বিধবা মা বাইসাইকেল চালিয়ে ৪২ বছর স্বাস্থ্যসেবা দিচ্ছেন

নারী সহকারীর সঙ্গে ডিসির অশ্লীল ভিডিও ভাইরাল, সংবাদ না করার অনুরোধ

আমি চাই আমাকে দেখে আর দশটা মেয়ে সমাজে প্রতিষ্ঠিত হোক - শ্রাবন্তী অনন্যা

বিএনপি নেতা আবু বকর আবু’র জানাজায় হাজারো মানুষের ঢল

আপনার কাছে জনপ্রিয় খেলা কোনটা ?

  ক্রিকেট

  ফুটবল

  ভলিবল

  কাবাডি

অফিস ঠিকানা  

আর এল পোল্ট্রি, উপজেলা রোড, কেশবপুর বাজার, যশোর।
মোবাইলঃ   ০১৭১৯২৮০৮২৭
ইমেইলঃ   info@kopotakkhonews24.com

প্রকাশক ও সম্পাদক 

মোঃ মাহাবুবুর রহমান (মাহাবুর)

মোবাইলঃ   ০১৭১৯২৮০৮২৭
ইমেইলঃ   info@kopotakkhonews24.com

সোশ্যাল মিডিয়ায় আমরা