আজ শুক্রবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ১৬ ফাল্গুন ১৪২৬           আমাদের কথা    যোগাযোগ
Owner

শিরোনাম

  জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল কপোতাক্ষ নিউজের জন্য বাংলাদেশের প্রতিটি জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। আগ্রহী প্রার্থীরা ০১৭১৯২৮০৮২৭ নাম্বারে যোগাযোগ করুন।  

‘বনের পাখিরে কে চিনে রাখে...’


‘বনের পাখিরে কে চিনে রাখে...’

প্রকাশিতঃ সোমবার, সেপ্টেম্বর ৯, ২০১৯   পঠিতঃ 108675


শ্যামল সরকার: জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম। তাকে চেনেন না জানেন না এমন মানুষ বোধ করি খুব কমই আছেন। সাবেক প্রেমিকা ও স্ত্রী নার্গিসের উদ্দেশে লিখেছিলেন ওই গানের কলি। বাসর রাত্রেই হঠাত্ এক ঝড়ে তাদের মিলন এলোমেলো হয়ে যাওয়ার দেড় দশক পর তিনি লিখেন এই গান- ‘বনের পাখিরে কে মনে রাখে-গান হলে অবসান?’ আজ ৯ সেপ্টেম্বর। আজকের দিনে নজরুলের ওই গানের কলিই বারবার মনে পড়ছে। এরকম তারিখ তো জীবনে কতই আসে-কতই যায়। কিন্তু এ তারিখের আবার কী এমন বিশেষত্ব! প্রশ্ন তুলতেই পারেন যে কেউ। তবে আমি বলব, এই তারিখ আমার জীবন বিকাশে দ্বিতীয় পুরুষের বিয়োগ বেদনায় মাখানো একটি দিন। তিনি এক আদর্শ পুরুষ। যার আজকের সময়ে বিশেষ করে কেশবপুরের জন্য বড়ই প্রয়োজন ছিল। বলছি মরহুম সাদেক সাহেবের কথা। এ দিনে তার পৃথিবী থেকে চলে যাবার দিন। পাখিরা যেমন বনের সৌন্দর্য, তেমনি গোটা দেশ ও কেশবপুরের সৌন্দর্য ছিলেন মরহুম সাদেক আঙ্কেল। তার জীবনাবসান হলেও কেশবপুরের মানুষের মনে তিনি আরও বেশি করে উজ্জ্বল। তাকে কেউ ভোলেনি। ভুলতে পারেন না। আরও বেশি করে তার প্রয়োজনীয়তা বাড়ছে মানুষের কাছে।
 
নানা দুঃখ-বেদনা, অভিমানে ভর করে বিশেষ কিছু লেখা সত্যিই কঠিন। গুছিয়ে মিথ্যা না বলতে পারার অযোগ্যতায় আমার মতো অনেকেই আজ দূরে-নিভৃতে। কেশবপুর আওয়ামী লীগে সাদেক সাহেবের সব আপনজন আজ তাদের নানা কষ্টের কথা বলেন। শুনতে ভালো লাগে না। এমনতো হবার কথা ছিল না।
 
১৯৯৬ সালের কেশবপুরের নির্বাচনে থেকে প্রথমবারের মতো আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীক নিয়ে তিনি জয়লাভ করেন। তারপর সারাদেশের সঙ্গে এ এলাকার মানুষের জীবন-মান উন্নয়ন, অবকাঠামো, শিক্ষা, স্বাস্থ্য ইত্যাদির উন্নয়নে মরহুম সাদেক সাহেবের ভূমিকার কথা স্মরণ করি এ জন্য যে, যদি ভবিষ্যতে এমন কোনো পরম অভিভাবক কেশবপুর খুঁজে পায়। কত জনই সরকারি ছোট-বড় চাকরি করেন। সাদেক সাহেব চাকরি জীবনের সর্বোচ্চ পর্যায়ে পৌঁছেছিলেন। অনুরূপভাবে রাজনীতিতে প্রবেশ করেও সফল হন। রাজনীতিতে প্রবেশ করে এমপি হয়ে মন্ত্রী, তা থেকে আসে বিশ্ব পরিচিতি। তাঁর পরিচিতির সঙ্গে মিশে আছে কেশবপুরের পরিচিতি, সম্মান ও মর্যাদা। আজও কেশবপুরের মানুষ তাঁর মানসিক উচ্চতাকে সম্মান করে। তার মার্জিত রুচিবোধ, মানুষকে সম্মান করা, ভালোবাসা দেওয়া আজও তাকে স্মরণীয় করে রেখেছে। তিনি বলতেন অপরকে সম্মান করে নিজেকে সম্মানিত করো। অপরকে ভালোবাসো তবে নিজেও ভালোবাসা পাবে। সৌজন্যতার কথা কী বলব। একবার রামপুরার বাসায় থাকতে সপরিবারে রাতে এসেছিলেন। ফিরে স্ত্রী এবং আমার সঙ্গে ফোনে কথা বললেন। শুধু বললেন রান্নাটা খুব ভালো হয়েছে। ভালো থেক। তিনি বলতেন, কারো সামনে কাউকে খাটো করার চেষ্টা মানেই তার কাছে নিজেকে খাটো করা।
 
কালের চক্রে নিয়তির ঠিকানায় শেখ হাসিনার অনুগ্রহে তার পত্নী ইসমাত আরা সাদেক আজ কেশবপুরের এমপি। অবশ্য কঠিন চ্যালেঞ্জ নিয়ে কেশবপুরের অনেক মানুষ নানাভাবে এমপি হতে তাকে সাহায্য করেছেন। যদিও আজ তাদের অনেকেই অনেক দূরে। মিসেস সাদেক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মন্ত্রিসভার সদস্য। কেশবপুরের মানুষকে এবং মরহুম সাদেক সাহেব নিজেকে যে সুমহান মর্যাদায় উঠিয়েছিলেন নিজের কাজের মাধ্যমে সেখান থেকে আরও উঁচুতে নিয়ে যাবেন এই প্রত্যাশাই রইল আমার।
 
আবু শারাফ হেফজুল কাদের সাদেক। বাংলাদেশ সরকারের সাবেক সফল শিক্ষামন্ত্রী। দেশবাসী যাকে এ এস এইচ কে সাদেক নামেই চিনতেন। জন্ম ১৯৩৪ সালের ৩০ এপ্রিল। যশোর জেলার কেশবপুর উপজেলার ‘বড়েঙ্গা’ গ্রামে। সে সময়ে যে গ্রামে ছিল না বিদ্যুত্, পাকা রাস্তা, স্কুল এমনকি একটি পাকা বাড়িও। তার পিতা মরহুম ইয়াহিয়া সাদেক ছিলেন যুক্তবাংলা সরকারের একজন যুগ্ম কমিশনার। তিনি ১৯৫৬ সালে সিভিল সার্ভিস অব পাকিস্তান তথা সিএসপি ক্যাডারে যোগ দেন।   
 
১৯৯০ সালের দিকে আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে যোগদান করেন এবং আওয়ামী লীগের সভানেত্রীর উপদেষ্টামণ্ডলীর অন্যতম সদস্য নিযুক্ত হন। ১৯৯৩ সালে প্রথম তাঁর সঙ্গে আমার পরিচয় হয়। পেশাগত কাজে আওয়ামী লীগ ৩ নম্বর ধানমন্ডির অফিসে যাতায়াত ছিল আমার। সেখানেই তাঁর সঙ্গে প্রথম পরিচয়। তারপর যতদিন ধানমন্ডির অফিসে তাঁর সঙ্গে দেখা হয়েছে রাত হলে নিজ গাড়িতে করে আমাকে তখনকার বাসা রামপুরায় পৌঁছে দিয়ে তারপর গুলশান যেতেন। পর্যায়ক্রমে তাঁর বাসায়ও যাতায়াত শুরু হলো। তারপর পারিবারিক ও রাজনৈতিকভাবে কখন কীভাবে তার সঙ্গে একাকার হয়ে গিয়েছিলাম তা আজ শুধুই স্মৃতি।
 
কেশবপুরের মানুষের কাছে সাদেক মানেই নতুনভাবে বাঁচতে শেখা ও যোগাযোগ ব্যবস্থাকে ঢেলে সাজানো। মানুষের সম্মান-আত্মমর্যাদা রক্ষা, পৌর শহরের উন্নয়ন ও প্রতিটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আর্থিক সাহায্য প্রদান। নতুন উদ্দীপনায় কৃষকের কণ্ঠে গান। কৃষাণি মায়ের মুখে হাসি। স্কুল বন্ধ হওয়া ছেলেমেয়ের আবার স্কুলে ছুটে চলা। বেগম ইসমাত আরা সাদেক তাঁর সহধর্মিণী। এখন তিনিই পারেন কেশবপুরের মান-সম্মান রক্ষা করতে। তার সামনে বড় চ্যালেঞ্জ, কিন্তু সময় খুবই কম। তার চেষ্টার কথা শুনেছি। আশা করি, তাঁর চেষ্টা সফল হবে। আজ ১২তম মৃত্যুবার্ষিকীতে আমরা মরহুম সাদেকের স্মৃতির প্রতি জানাই গভীর শ্রদ্ধা এবং তার আত্মার চিরশান্তি কামনা করি। তিনি নাড়ীর টানেই ছুটে গিয়েছিলেন কেশবপুরে। কারণ সেখানেই যে তার জন্ম। নিয়তি তাই কেশবপুরের মাটিতেই তার নিঃশ্বাস কেড়ে নিল। নাড়ীর টান ছিল বলেই তিনি কেশবপুরের মানুষের মন জয় করতে পেরেছিলেন।
 
লেখক : সাংবাদিক

কামরুজ্জামান রাজু / কামরুজ্জামান রাজু


মন্তব্য করুন

কেশবপুরে উপনির্বাচনে জাপা প্রার্থী হাবিবুর রহমানের মনোনয়ন পত্র দাখিল

আমের মুকুল ঝরা সমস্যার কারণ ও প্রতিকার ব্যবস্থা

প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক পেলেন পবিপ্রবির ৭ শিক্ষার্থী

স্ত্রীকে রেখে স্বামী যতদিন প্রবাসে থাকতে পারবেন

কেশবপুরের হাসানপুরে আওয়ামী লীগের কর্মীসভা অনুষ্ঠিত

মুক্তিযোদ্ধা মামাকে নানা বানিয়ে চাকরি, ফেঁসে গেলেন কৃষি কর্মকর্তা

মুজিববর্ষ উপলক্ষে ভেড়ামারায় নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতা

কেশবপুর গড়ভাঙ্গা প্রিমিয়ার লীগ (জিপিএল)-২০ এর উদ্বোধন

৩৫ প্রত্যাশীদের বিক্ষোভ কাল, ঢাকায় আসছে নেতাকর্মীরা

বাড়ছে বাংলাদেশের অর্থনীতির আকার, বাড়ছে অনৈতিকতা-অসততা

মৃত ছাত্রীর দেহ ধরে কান্নারত বাবাকে ভারতীয় পুলিশের লাথি

কোন ব্যাংক বন্ধ হলে সব টাকা ফেরত পাবে আমানতকারীরা

কালীগঞ্জে সুপারি গাছ থেকে পড়ে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে সিয়াম!

কারাগার থেকে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র এহসান হাবিব সুমন এর খোলা চিঠি

যেকোন সময় ঘোষণা হতে পারে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটি

এসএসসি পরীক্ষাঃ বাংলা দ্বিতীয় পত্রে বেশি নম্বর সহজেই...

৫০ বছর ধরে দল করেও সুবিধা বঞ্চিত আ'লীগের প্রচার সম্পাদক নূরুল হক

যশোরের রাজগঞ্জে ৫৬ যুবকের উদ্যোগে ভাসমান সেতু র্নিমাণ

কেশবপুরের শাহীনের সেই ভ্যানটি উদ্ধার, আটক তিনজন

লালমনিরহাটে এক বিধবা মা বাইসাইকেল চালিয়ে ৪২ বছর স্বাস্থ্যসেবা দিচ্ছেন

নোংরা রাজনীতির শিকার যশোরের এমপি স্বপনের ছেলে শুভ

নারী সহকারীর সঙ্গে ডিসির অশ্লীল ভিডিও ভাইরাল, সংবাদ না করার অনুরোধ

আমি চাই আমাকে দেখে আর দশটা মেয়ে সমাজে প্রতিষ্ঠিত হোক - শ্রাবন্তী অনন্যা

বিএনপি নেতা আবু বকর আবু’র জানাজায় হাজারো মানুষের ঢল

আপনার কাছে জনপ্রিয় খেলা কোনটা ?

  ক্রিকেট

  ফুটবল

  ভলিবল

  কাবাডি

অফিস ঠিকানা  

আর এল পোল্ট্রি, উপজেলা রোড, কেশবপুর বাজার, যশোর।
মোবাইলঃ   ০১৭১৯২৮০৮২৭
ইমেইলঃ   info@kopotakkhonews24.com

প্রকাশক ও সম্পাদক 

মোঃ মাহাবুবুর রহমান (মাহাবুর)

মোবাইলঃ   ০১৭১৯২৮০৮২৭
ইমেইলঃ   info@kopotakkhonews24.com

সোশ্যাল মিডিয়ায় আমরা