আজ বুধবার, ১ এপ্রিল ২০২০, ১৮ চৈত্র ১৪২৬           আমাদের কথা    যোগাযোগ
Owner

শিরোনাম

  জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল কপোতাক্ষ নিউজের জন্য বাংলাদেশের প্রতিটি জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। আগ্রহী প্রার্থীরা ০১৭১৯২৮০৮২৭ নাম্বারে যোগাযোগ করুন।  

যেখানে পর গাছার ভিড়ে আওয়ামী লীগ মৃত সেখানে কে এই আমজেদ


যেখানে পর গাছার ভিড়ে আওয়ামী লীগ মৃত সেখানে কে এই আমজেদ

প্রকাশিতঃ শুক্রবার, অক্টোবর ১১, ২০১৯   পঠিতঃ 281043


বেশকিছু দিন ধরে ফেসবুক ও বিভিন্ন অনলাইন নিউজ পোর্টাল এবং দৈনিক পত্রপত্রিকা গুলোতে আমজেদ হোসেন নামে একজন চা বিক্রেতা ছবি বেশ সাড়া ফেলেছে। প্রথমে তেমন কোন কর্ণপাত করিনি কারণ বর্তমান মিডিয়ার কল্যাণে এবং মনিরামপুরসহ সারাদেশে আওয়ামী লীগের যে অবস্থা তাতে করে আমি কেন- আমার মতো হাজারো মানুষ মুখ ফিরিয়ে নিবেন এটাই স্বাভাবিক। আর তারপরে আবার মনিরামপুর। কেননা মনিরামপুর এখন আওয়ামী লীগ বেঁচে আছে কিনা এটাও একটা বড়ো প্রশ্ন, আর সেখানে কোথাকার কোন আমজেদ।

কথাটা যদিও শুনতে খারাপ লাগবে তবুও সত্যি বলতে হয়। যেখানে বড় বড় অপরাধীরা বলছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে ছাড়া আওয়ামী লীগের সকলকে কেনা যায় সেখানে দুঃখ প্রকাশ করে কিছু কথা বলাই যায়।সবে গত হলো মনিরামপুরের এক সাংবাদিক তার নিজের ফেসবুক আউডিতে স্টাটাসে লিখেছেন- মনিরামপুর ইউনিয়ন যুবলীগে বিএনপির নেতা কর্মীর ছড়াছড়ি। আর সেই পোস্টে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী মনোনীত বর্তমান মনিরামপুর উপজেলা চেয়ারম্যান "নাজমা খানম" মন্তব্য করেছেন তাতে কি হয়েছে নাম তো যুবলীগ। মানে তিনি বলতে চাইছেন জামাত, বিএনপি যায় হোক নাম তো যুবলীগ, তারা এখন সবাই মুজিব সৈনিক। সত্যি যদি আইডি মালিক উপজেলা চেয়ারম্যান হয় তাহলে আমি তার এই কথার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানায়। তবে এই প্রশ্ন আজ গলায় কাঁটা হয়ে বেঁধে রইল। জোর করে ছু্ঁড়ে দিলাম গণভবনে। সত্যি আজ আওয়ামী লীগ পরিচয় দিতেই লজ্জা করে। কারণ আওয়ামী লীগের আজ পর গাছার ভিড়ে আওয়ামী লীগের মৃত্যু হয়েছে। জানিনা মা জননীর মৃত্যুর পর বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কী হবে?

এমন চিন্তায় যখন আওয়ামী লীগের দুখি দরদীরা, ঠিক তখন শুনতে পেলাম যশোরের মনিরামপুরে আমজেদ নামের এক আওয়ামী প্রেমিক বন্ধুর কথা। এখন আসুন দেখি কে এই আমজেদ? কাপে চা ঢালেন আর কল্পনা করেন জননেত্রী শেখ হাসিনা সরকারের উন্নয়নের ছোঁয়ায় গ্রাম এলাকার রাস্তাঘাট উন্নত হবে। শহরের সকল সুবিধা গ্রামের মানুষ ভোগ করবে। একদিন এদেশ মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুর ছাড়িয়ে যাবে। অথচ একদিন উননে (চুলা) চা না জ্বালালে সংসার চলে না এমন একজন মানুষ  আমজেদ হোসেনের। 

শুরু করলাম অভিজান চারিদিকে ফোন করলাম কে এই আমজেদ? খোঁজ খবর নিয়ে জানতে পারলাম মনিরামপুর উপজেলার চালুয়াহাটি ইউনিয়নের মোবারকপুর গ্রামের সত্য নিষ্ট নিরিহ আমজেদ হোসেন মণিরামপুর উপজেলার চালুয়াহাটি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহবায়কের দায়িত্ব আছেন বর্তমানে এবং সাবেক নির্বাচিত ইউপি সদস্যও ছিলেন তিনি। অথচ দল আজ ১১বছর ক্ষমতায়, তারপরও দলীয় পদ-পদবী ব্যবহার করে কোন ধরনের লোভ-লালসায় গা ভাসিয়ে দেননি তিনি। কোন ধরনের অনৈতিক কর্মকান্ডে জড়িত থাকার অভিযোগ নেই তার বিরুদ্ধে।

২০০১ সালে বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতায় এলে মিথ্যা মামলার হুলিয়া নিয়ে দীর্ঘদিন পালিয়ে বেড়িয়ে বাবার পৈত্রিক জমিটুকু মামলা চালাতে গিয়ে শেষ করে সর্বশান্ত হন তিনি। তাই বাধ্য হয়ে চা-পান বিক্রি করতে নেমে পড়েন। পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া ৭ কাঠা জমি ও ভিটে-বাড়িই তার একমাত্র  সম্বল।

কঠোর দারিদ্রতার মধ্যে নিতি বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে লালন করে দলীয় সকল কর্মসূচীতে অংশ নেওয়াসহ সংগঠনকে শক্তিশালী করতে নিরলস পরিশ্রম করেন। সাংগঠনিকসহ এলাকার মানুষের বিপদে-আপদে ডাক আসলেই চায়ের দোকান ফেলে রেখেই চলে যান। বাধ্য হয়ে সংসারের খরচ জোগাতে তার একমাত্র স্কুল পড়ুয়া ছেলে আব্দুর রাজ্জাক ও চা-পান বিক্রিতে নেমে পড়ে। এসএসসি পাশ করেই বাবার চায়ের দোকানে থাকতে গিয়ে পড়ালেখায় আর বেশি দুর আগাতে পারেনি রাজ্জাক।

উপজেলার রাজগঞ্জ বাজারে একটি খুপড়ি ঘরে চা-পান আর কলা, রুটি বিক্রি করেন আমজেদ হোসেন। তার একটাই চাওয়া জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের ছোঁয়া সাধারণ মানুষের মাঝে ছড়িয়ে দিয়ে সংগঠনকে শক্তিশালী করা।

চায়ের কাপে চা ঢালতে ঢালতে কথা হয় আমজেদ হোসেনের সাথে। তিনি জানান, ইউনিয়নটি একসময় বিএনপি-জামায়াত অধ্যুষিত ছিল। দলের ১৯৯৩ সালে আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে সংশ্লিষ্ট হন। এরপর প্রতিটি আন্দোলনে সংগ্রামে সরব উপস্থিতি উপজেলার নেতৃবৃন্দের দৃষ্টি কাড়তে সক্ষম হন। ১৯৯৬ সালের ১২ জুনের জাতীয় নির্বাচনে আওয়ামী লীগ রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় আসলেও তিনি কোন অনৈতিক সুবিধায় নিজেকে জড়াননি। ২০০১ সালে বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতায় আসলে রোষানলে পড়েন তিনি। তাকে ৪ টি মিথ্যা মামলায় ফাঁসানো হয়। দীর্ঘদিন পালিয়ে বেড়িয়ে আদালতে আত্মসমর্পনের পর দেড় মাস কারাভোগ করে এলাকায় ফিরে চায়ের দোকান দিয়ে সংসার চালাতে শুরু করেন। ২০০৩ সালে উপজেলা নেতৃবৃন্দ ওয়ার্ড কমিটি করতে আসলে কেউ কমিটিতে আসতে চাইনি। তাকেই নিজ ওয়ার্ডের সভাপতির দায়িত্ব দেয়া হয়। পরে সাংগঠনিক দক্ষতায় তাকে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহবায়ক করা হয়। সেই অবধি দায়িত্ব পালন করে আসছেন তিনি। এরমধ্যে ২০১৬ সালের ২২ মার্চ অনুষ্ঠিত ইউনিয়ন নির্বাচনে এলাকার লোকজন মেম্বর পদে প্রার্থী করে নির্বাচিত করেন তাকে। নির্বাচনের খরচও এলাকাবাসি বহন করে। সংগঠনসহ এলাকার মানুষে বিপদে-আপদে যখন-তখন বের হতে হয় বলে দোকানে পরিপাটি হয়ে থাকেন তিনি।

সত্যি আজ আমজেদ আওয়ামী রাজনীতিরে এক জলন্ত উদাহরণ, বিশেষ করে মনিরামপুরের জন্য। এই আমজেদের মতো কিছু মানুষ এখনো আওয়ামী লীগে আছে বলেই আজও মানুষ আওয়ামী লীগের রাজনীতি করে। তবে এই আমজেদেরকে যদি মূল্যায়ন করা না হয় তাহলে সেদিন বেশি দূরে নয় মানুষ আওয়ামী লীগের রাজনীতি তো দূরের কাথা নামটাও মনে রাখবেনা।

লেখক, 
মোঃ শাহ্ জালাল. 
একজন গণমাধ্যম কর্মী ও সাবেক ছাত্রনেতা। 
ঢাকা-১২০৫

শাহ্‌ জালাল / কামরুজ্জামান রাজু


মন্তব্য করুন

করোনাভাইরাস: পাঁচ কারণে বাংলাদেশে ঝুঁকি কমছে

‘মানবতার ঘরে’ বিনামূল্যে পাওয়া যাবে চাল-ডাল

জ্বর হলে পুলিশ ধরে নিয়ে যাবে, গুজবে কান দেবেন না

মৃত ব্যক্তির দেহে কতক্ষণ পর্যন্ত করোনাভাইরাস থাকতে পারে?

বিশ্বব্যাপী এ পর্যন্ত করোনাভাইরাসে মারা গেছে ৪২ হাজার

ত্রাণ নিয়ে অনিয়মের সংবাদ করায় ৩ সাংবাদিককে পেটালেন ইউপি চেয়ারম্যান

এমন সংকটের দিনে জনগণের পাশে নেই বিএনপি : কাদের

কয়রায় ভ্রাম্যমাণ আদালতে মাদকসেবীকে জরিমানা 

করোনা ভাইরাস থেকে আমরা কী শিখলাম

কয়রা উপজেলা প্রশাসনের ব্যতিক্রম উদ্যোগে অসহায় মানুষ হচ্ছে উপকৃত

মুরাদনগরে জীবানুনাশক স্প্রে করে মোহনা সোসাইটি সংঘটন

তিন বছর বয়সী শিশুর মৃত্যু, ৬ পরিবার কোয়ারেন্টাইনে

কালীগঞ্জে সুপারি গাছ থেকে পড়ে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে সিয়াম!

কারাগার থেকে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র এহসান হাবিব সুমন এর খোলা চিঠি

যেকোন সময় ঘোষণা হতে পারে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটি

এসএসসি পরীক্ষাঃ বাংলা দ্বিতীয় পত্রে বেশি নম্বর সহজেই...

৫০ বছর ধরে দল করেও সুবিধা বঞ্চিত আ'লীগের প্রচার সম্পাদক নূরুল হক

যশোরের রাজগঞ্জে ৫৬ যুবকের উদ্যোগে ভাসমান সেতু র্নিমাণ

কেশবপুরের শাহীনের সেই ভ্যানটি উদ্ধার, আটক তিনজন

লালমনিরহাটে এক বিধবা মা বাইসাইকেল চালিয়ে ৪২ বছর স্বাস্থ্যসেবা দিচ্ছেন

নোংরা রাজনীতির শিকার যশোরের এমপি স্বপনের ছেলে শুভ

নারী সহকারীর সঙ্গে ডিসির অশ্লীল ভিডিও ভাইরাল, সংবাদ না করার অনুরোধ

ব্যাচমেট হিসেবে সাইয়েমার পক্ষে সকলের কাছে ক্ষমা চাইলেন কেশবপুরের এসিল্যাণ্ড

আমি চাই আমাকে দেখে আর দশটা মেয়ে সমাজে প্রতিষ্ঠিত হোক - শ্রাবন্তী অনন্যা

আপনার কাছে জনপ্রিয় খেলা কোনটা ?

  ক্রিকেট

  ফুটবল

  ভলিবল

  কাবাডি

অফিস ঠিকানা  

আর এল পোল্ট্রি, উপজেলা রোড, কেশবপুর বাজার, যশোর।
মোবাইলঃ   ০১৭১৯২৮০৮২৭
ইমেইলঃ   info@kopotakkhonews24.com

প্রকাশক ও সম্পাদক 

মোঃ মাহাবুবুর রহমান (মাহাবুর)

মোবাইলঃ   ০১৭১৯২৮০৮২৭
ইমেইলঃ   info@kopotakkhonews24.com

সোশ্যাল মিডিয়ায় আমরা