আজ বুধবার, ১ এপ্রিল ২০২০, ১৮ চৈত্র ১৪২৬           আমাদের কথা    যোগাযোগ
Owner

শিরোনাম

  জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল কপোতাক্ষ নিউজের জন্য বাংলাদেশের প্রতিটি জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। আগ্রহী প্রার্থীরা ০১৭১৯২৮০৮২৭ নাম্বারে যোগাযোগ করুন।  

আলাউদ্দিনের লেখা 'আমরা মানুষ'


আলাউদ্দিনের লেখা 'আমরা মানুষ'

প্রকাশিতঃ শনিবার, ফেব্রুয়ারী ২৯, ২০২০   পঠিতঃ 63693


আমি আলাউদ্দিন,পুরো নাম আলাউদ্দিন হোসেন। জন্মসূত্রে মুসলমান। মুসলিম পরিবেশেই,মুসলিম সমাজেই আমার বেড়ে ওঠা। কিন্তু সমাজে মুসলিমরা এত জর্জরিত হবে,মুসলিমরা এত অপমানিত হবে তেমন বোধ আমার হয়নি। আমি মুসলিম এমন নামে একটা সময় সমাজে পরিচয় দিতে হবে ভাবিনি।

সাড়ে একুশ বছর বয়সে শুধু এতটুকু জেনেছিলাম আমি মানুষ। ধর্ম নিয়ে গর্ব অথবা বিদ্বেষী কোন  মনোভাব আমার ভিতর কখনো আসেনি।রক্তদান একটা সংগঠনের বেশ গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় আমার নাম থাকায় আমি মানুষদের নিয়ে মানুষদের সেবা করে চলেছি। কখনো জাত গোত্র খুজতে যায়নি, আমাদের সংগঠনে হিন্দু-মুসলিমরা শুধু মানুষ হয়েই চলেছি।কিন্তু গত কয়েক বছর আমাকে হিন্দু-মুসলিম জিনিসটাকে খুব ভাল করে দেখিয়েছে আমার সমাজটা।

স্কুল জীবনে যে তুষার আমার প্রিয় বন্ধু ছিল সে ছিল হিন্দু আমি ছিলাম মুসলিম।তখন এতটা ভাবিনি মানুষদেরও আলাদা একটা  পরিচয় থাকা লাগে।মানুষদেরও আলাদা একটা সংস্কার লাগে।
তুষার আর আমার মাঝের পার্থক্য ছোট বেলায় না বুঝলেও দিব্যি এখন বুঝি। আমি পানি বলতাম তুষার বলতো জল,আমার ছিল ইদ তুষারের ছিল দুর্গাপূজা,আমার ছিল নামাজ তুষারের ছিল পূজা,আমি আম্মু আব্বু বলতাম ও বলতো মা বাবা।ওদের পূজার ঘরে আমার যাওয়া নিষেধ, আমাকে ছোয়া তার নাকি মহাপাপ তা শুধু এখন বুঝি।

এত প্রশ্ন মাথায় বয়ে তুষারকে কাছে পেয়ে চোখ মিলে তার মাঝে খোজার চেষ্টা করি তার শরীরে এমন কী অাছে যেটা আমি মুসলমানের মাঝে নাই?এমন কী লুকানো যার জন্যই অামরা প্রিয় বন্ধুকে কাছে নিতে পারিনা?তেমন কিছুই পাইনি শুধু ধর্মের নামে সংস্কার ছাড়া।

আমার কেউ ভাষা অান্দোলনের কথা মুখে শোনায়নি,শেখ মুজিবের বীরত্বের কাহিনি চোখে দেখায়নি,মায়ের কাছে অ-তে অজগর বর্ণ শিখেই বইয়ের অধ্যায়ে পড়েছি ভাষা শহীদদের কথা,শেখ মুজিবের রক্তঝরা দাবি এবারের সংগ্রাম,মুক্তির সংগ্রাম,বইয়ের  পাতাতেই জেনেছি দেশ স্বাধীনে হিন্দু মুসলিমদের ত্যাগ।মায়ের  সাথে সন্ধ্যায় হ্যারিকেনের আলোয় বসে শুনতাম রাজার গল্প,ঠাকুমার ঝুলির গল্প তা শুনতে শুনতেই ঘুমিয়ে পড়তাম। আমার আনন্দ, আমার উৎসাহ, আমার হাসি,আমার দুঃখের ভাষা একটা বাংলা ভাষা,তুষারেও তো এমনটাই বাংলা ভাষায় সবকিছুর প্রকাশ।

তবে বড় হতে হতে জেনেছি অামরা মুসলমানরা বাংলা ভাষাকেও ব্যাবহার করতে গিয়ে বেশ ভয়ে থাকি যখন হিন্দু বন্ধুর সাথে কথা বলতে যায়।খুব হিসাব করে কথা বলি হিন্দু বন্ধুদের সাথে যেন মুখ দিয়ে আব্বা,আম্মা,চাচি,নানি পানি শব্দগুলা না বের হয়।

ক্লাস ফোর বা ফাইভেই পড়ি হয়তো তখন,একদিন হিন্দু প্রাইভেট ম্যাডাম অরুনা রানীর(ছদ্মনাম) কাছে পড়তে গিয়ে এক বন্ধু কথার প্রসঙ্গেই বলল তার আব্বা হজ্জ করতে গেছে,পাশ থেকে এক বন্ধু বলল মক্কার কালো ঘরে নাকি শিবের মূর্তি আছে,তাকেই ঢিল ছুড়ে মেরেই নাকি মুসলমানদের হজ্জ শেষ হয়।
মিনা-রাজুর গল্প,সাদাকালো টিভিতে শিশিমপুর আর মায়ের কাছে গল্প পড়েই ঘুম আসে, আমার দেশে কী কী আছে সেটাই যখন জানা হয়নি সেখানে মক্কার কালো ঘরের(কাবা শরীফ) কাহিনি অজানায় ছিল তাই কোন উত্তর দিতে পারিনি বন্ধুর কথাগুলোর।
একরাশ বিস্ময় নিয়ে বাড়ি ফিরেছি সেদিন।

বাংলাদেশ-পাকিস্তান যখন হাই ভোল্টেজ ক্রিকেট ম্যাচ হতো প্রতিটা প্লেয়ারের রান রেট মুখস্ত করে ফেলতাম কিন্তু সৌম্য সরকার ভাল খেললে আমাকে শুনতে হতো আজ তাদের প্লেয়ারের খেলা দেখ।সৌম্য ওদের প্লেয়ার কি করে হয়? সৌম্যতো  গোটা বাংলাদেশেরই প্লেয়ার,লিটন দাস তো আমার বাংলাদেশেরই প্লেয়ার।

ভারত পাকিস্তানের খেলায় কোনদিন পাশ্ববর্তী দেশ হিসাবে ইন্ডিয়াকে কখনো বন্ধুরা সাপোর্ট দিতে দেইনি,সবসময় বলেছে ইন্ডিয়া নাকি হিন্দুদের বাসস্থান। আর মুসলিম দেশ পাকিস্থান।এমন যুক্তি কখনো মাথায় ঠুকায়নি আমি, যদি তাদের যুক্তি মানি তবে আমার বিবেক তো বলবে দেশ স্বাধীনে ভারতই আমাদের সাহায্য করেছে আর পাকিস্তানরাই মেরেছে আমাদের।

তারপরও পাকিস্তান জিতলে শুনতে হয়েছে আমার দেশ জিতেছে।যেখানে ইতিহাস পড়ছি পাকিস্তান আমাদের ৯ মাসে কয়েক লাখ বাংলাদেশীদের মেরেছে,পাকিস্তানরা আমাদের উর্দু শিখাতে চেয়েছে।সেখানে পাকিস্তান আমার দেশ কিভাবে হলো তখন বুঝিনি।

এগুলা আমার  আম্মুকে বাড়ি এসে বললে তিনি শুধু বলেছেন,ঘৃণা কে ঘৃণা নয় ভালবাসা দিতে শেখ।ভালবাসা ছড়াও,মুসলিমদের ভালবাসা,তোমার ভালবাসা ওরা একদিন বুঝবে।সাড়ে ২১ বছর বয়স অব্দি তাই করে গেছি।আজ শুধু চিৎকার করে বলতে ইচ্ছে হয় ভুল বলেছো মা ভুল,সবসময় ভুল বলেছো।দেখ পৃথিবীর চারপাশই আজ  আমি অপমানিত,লজ্জিত,নির্যাতিত,দেশ ছাড়া।

আমরা কখনো মাগো ওদের মন্দিরে সামান্য ঢিল মারিনি ওরা মসজিদ ভাঙ্গে,ওরা আমাদের বাড়ি পুরায়।আমরা সবাই এক মানুষ না। আমাদের মানুষরা জাত আছে,গোত্র আছে।

যে জাত,যে গোত্র একসমাজে বাস করতে বাস করতে পারেনা।
বিশ্বে ধর্মের নামে মানুষরা, মানুষদেরই মারে। ধর্মকে কেউ মারেনা,সমাজকে কেউ মারেনা,সংস্কার কে কেউ মারেনা।

ইসরাফিল হোসেন / ইসরাফিল হোসেন


মন্তব্য করুন

ত্রাণ নিয়ে অনিয়মের সংবাদ করায় ৩ সাংবাদিককে পেটালেন ইউপি চেয়ারম্যান

এমন সংকটের দিনে জনগণের পাশে নেই বিএনপি : কাদের

কয়রায় ভ্রাম্যমাণ আদালতে মাদকসেবীকে জরিমানা 

করোনা ভাইরাস থেকে আমরা কী শিখলাম

কয়রা উপজেলা প্রশাসনের ব্যতিক্রম উদ্যোগে অসহায় মানুষ হচ্ছে উপকৃত

মুরাদনগরে জীবানুনাশক স্প্রে করে মোহনা সোসাইটি সংঘটন

তিন বছর বয়সী শিশুর মৃত্যু, ৬ পরিবার কোয়ারেন্টাইনে

করোনা আক্রান্ত নারীর যমজ সন্তান প্রসব, নাম রাখা হলো করোনা ও ভাইরাস

বাংলাদেশের অর্থনীতিতে করোনাভাইরাসের সম্ভাব্য প্রভাব ও উত্তরণের উপায়

বাংলাদেশে করোনায় মৃত্যু বেড়ে ৬, আক্রান্ত ৫৪: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ভারতে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ১৬১৩, মৃত ৩৫

আমেরিকায় ৩৫ বাংলাদেশিসহ করোনায় মৃত্যু ৪০৮০, আক্রান্ত ১ লাখ ৯০ হাজার

কালীগঞ্জে সুপারি গাছ থেকে পড়ে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে সিয়াম!

কারাগার থেকে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র এহসান হাবিব সুমন এর খোলা চিঠি

যেকোন সময় ঘোষণা হতে পারে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটি

এসএসসি পরীক্ষাঃ বাংলা দ্বিতীয় পত্রে বেশি নম্বর সহজেই...

৫০ বছর ধরে দল করেও সুবিধা বঞ্চিত আ'লীগের প্রচার সম্পাদক নূরুল হক

যশোরের রাজগঞ্জে ৫৬ যুবকের উদ্যোগে ভাসমান সেতু র্নিমাণ

কেশবপুরের শাহীনের সেই ভ্যানটি উদ্ধার, আটক তিনজন

লালমনিরহাটে এক বিধবা মা বাইসাইকেল চালিয়ে ৪২ বছর স্বাস্থ্যসেবা দিচ্ছেন

নোংরা রাজনীতির শিকার যশোরের এমপি স্বপনের ছেলে শুভ

নারী সহকারীর সঙ্গে ডিসির অশ্লীল ভিডিও ভাইরাল, সংবাদ না করার অনুরোধ

ব্যাচমেট হিসেবে সাইয়েমার পক্ষে সকলের কাছে ক্ষমা চাইলেন কেশবপুরের এসিল্যাণ্ড

আমি চাই আমাকে দেখে আর দশটা মেয়ে সমাজে প্রতিষ্ঠিত হোক - শ্রাবন্তী অনন্যা

আপনার কাছে জনপ্রিয় খেলা কোনটা ?

  ক্রিকেট

  ফুটবল

  ভলিবল

  কাবাডি

অফিস ঠিকানা  

আর এল পোল্ট্রি, উপজেলা রোড, কেশবপুর বাজার, যশোর।
মোবাইলঃ   ০১৭১৯২৮০৮২৭
ইমেইলঃ   info@kopotakkhonews24.com

প্রকাশক ও সম্পাদক 

মোঃ মাহাবুবুর রহমান (মাহাবুর)

মোবাইলঃ   ০১৭১৯২৮০৮২৭
ইমেইলঃ   info@kopotakkhonews24.com

সোশ্যাল মিডিয়ায় আমরা