আজ শুক্রবার, ২৯ মে ২০২০, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭           আমাদের কথা    যোগাযোগ
Owner

শিরোনাম

  জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল কপোতাক্ষ নিউজের জন্য বাংলাদেশের প্রতিটি জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। আগ্রহী প্রার্থীরা ০১৭১৯২৮০৮২৭ নাম্বারে যোগাযোগ করুন।  

আমাদের ছাত্র রাজনীতির অতীত বর্তমান ও ভবিষ্যৎ - প্রথম পর্ব


আমাদের ছাত্র রাজনীতির অতীত বর্তমান ও ভবিষ্যৎ - প্রথম পর্ব

প্রকাশিতঃ শুক্রবার, মে ২২, ২০২০   পঠিতঃ 13041


মোঃ শাহ্ জালাল, ঢাকা।। ছাত্র রাজনীতির ছিলো, আছে এবং থাকবে তবে আমাদের দেশের ছাত্র এবং ‘ছাত্র রাজনীতি’ বহুমাত্রিক ও বহুল ব্যবহৃত একটি ধারণা বলা যায়। দিনের পর দিন এ বিষয়ে সচেতন মহলে মিশ্র মনোভাব আলোচনা সমালোচনা লক্ষ্য করা যাচ্ছে। ইতিহাস ও ঐতিহ্যের দৃষ্টিকোণ থেকে বিচার করলে ইতিবাচক ধারণা হওয়া স্বাভাবিক। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের এক সমাবর্তন অনুষ্ঠানে সাবেক রাষ্ট্রপতি সাহাবুদ্দীন আহমদ বলেছিলেন, ‘শুধু রাজনীতি করে নেতা হয়ে ছাত্রজীবনেই যদি বাড়ি, গাড়ি ও ব্যাংক ব্যালেন্সের মালিক হওয়া যায়, তাহলে ছাত্ররা কেন কষ্ট করে পড়ালেখা করবে?’ 

জাতীয় ক্ষেত্রে প্রয়োজনের সময় ছাত্রসমাজই থাকে যে কোনো আন্দোলন এবং রাজনৈতিক পরিবর্তনের অগ্রযোদ্ধা। এটা শুধু বাংলাদেশের জন্য নয়, বিশ্বের প্রতিটি দেশের জন্যই সত্য এবং এক্ষেত্রে একটা বিষয় প্রণিধানযোগ্য যে, রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে নিজ নিজ আদর্শভিত্তিক ছাত্র সংগঠন থাকে। কিন্তুু সেগুলোর দায়িত্ব অন্ধ অনুকরণ নয়। অনেক সময় জাতীয় প্রয়োজনে তারা প্রেসার গ্র“পের ভূমিকা পালন করে।

ভারত ছাড় আন্দোলন, মহান ভাষা আন্দোলন, শিক্ষা আন্দোলন, গণ-অভ্যুত্থান, স্বাধীনতা যুদ্ধ এবং সর্বশেষ জন-আন্দোলন পর্যন্ত ছাত্ররাজনীতির কর্মকান্ড ছিল ঐতিহ্যমন্ডিত, গর্ব করার মতো। যারা বাংলাদেশের বর্তমান ছাত্ররাজনীতির মোটামুটি খবর রাখেন, তারা বর্তমান ও ভবিষ্যৎ নিয়ে চিন্তিত, উদ্বিগ্ন ও শঙ্কিত। দিন যতই যাচ্ছে রাজনীতির গতি-প্রকৃতি জটিল-কুটিল ও নোংরা হয়ে যাচ্ছে। ছাত্র রাজনীতির লক্ষ্য উদ্দেশ্যের মূলধারা থেকে ক্রমাগত দূর থেকে দূরে চলে যাচ্ছে। বেশিরভাগ নেতাকর্মীর অধঃপতন আমাদের ভাবনায় ফেলে দিচ্ছে। এভাবে চলতে থাকলে পরবর্তী প্রজন্ম দেশটাকে কোথায় নিয়ে যাবে, সেটাই প্রশ্ন।

ছাত্ররাজনীতি পরিচালিত হওয়া উচিত ছাত্রদের স্বার্থ-অধিকার আদায়ের লক্ষ্যে। বাংলাদেশের ছাত্র রাজনীতির ইতিহাস-ঐতিহ্য থেকে আমরা জানতে পারি, এক সময় যারা সবচেয়ে মেধাবী ছিলেন তাদেরকেই সামনে পাঠানো হতো। অর্থ্যাৎ সাধারণ শিক্ষার্থীরা ভাবত, ক্লাসের বা হলের সবচেয়ে মেধাবী ছাত্র যদি আমাদের পক্ষ থেকে কর্তৃপক্ষ বা প্রশাসনের সঙ্গে কথা বলে, তবে তারা তথ্য, যুক্তি বাগ্মিতা দিয়ে আমাদের চাওয়ার পক্ষে সবচেয়ে ভালো দর কষাকষি করতে পারবে এবং বেষ্ট আউটপুটটি আমরা পাব। তাছাড়া ছাত্রদের ঐক্যবদ্ধ করার ক্ষেত্রেও তাদের পার্সোনালিটি বড় ভূমিকা রাখবে। তখন সবাই তাদের সম্মান করত, শ্রদ্ধার চোখে দেখত।
আমাদের শিক্ষাঙ্গণগুলোর হাজারো সমস্যায় জর্জরিত। প্রয়োজনীয় ক্লাসরুম, দক্ষ ও যোগ্য শিক্ষক, আবাসিক হল, প্রয়োজনীয় বই-জার্নাল, যন্ত্রপাতি, চেয়ার-টেবিল, ফ্যানসহ অন্যান্য সহায়ক উপাদানের তীব্র অভাব, সেশনজট, সময়মতো ক্লাস পরীক্ষা-ফলাফল না হওয়া, বাস্তবতাবিবর্জিত শিক্ষা যা ভবিষ্যতে তদের পঙ্গু (বেকার) করে ফেলে ইত্যাদির মতো প্রত্যক্ষভাবে ছাত্রদের স্বার্থসংশ্লিষ্ট ইস্যুতে এরা আশ্চর্যজনকভাবে নীরব ভূমিকা পালন করে। বেশিরভাগ রাজনৈতিক দল ও নেতার কাজকর্ম ন্যূনতমভাবেও ছাত্র বিষয়ক নয়। কিন্তু সুবিধাবাদী রাজনীতিবিদরা এসব নেতাকে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহারের উদ্যোগ নেয়। অর্থ, অস্ত্র, মাদকদ্রব্য এমনকি নারীও বেছে নেয় হাতিয়ার হিসেবে। ছাত্রনেতাদের চরিত্রের অধঃপতন ঘটতে থাকে দ্রুতগতিতে। ধীরে ধীরে মেধাবীরা নিজেদের গুটিয়ে নিতে শুরু করে রাজনীতি থেকে। পড়াশোনা ও ক্যারিয়ার নিয়ে তারা মনোযোগী হয়ে ওঠে। আর এই সুযোগ অছাত্র, মাস্তান, চাঁদাবাজ, মাদকাসক্তরা ওই জায়গাগুলো দখল করতে শুরু করে।

বর্তমানে এরা দেশের বৃহত্তম রাজনৈতিক দলগুলোর লেজুড়বৃত্তিতে ব্যস্ত। তারা যেন মূল দলের কর্মসূচি বাস্তবায়নের জন্য ফিল্ড ওয়ার্কার হিসেবে কাজ করছে। নিজেদের স্বাতন্ত্র্য, মর্যাদা, অধিকার, প্রাপ্য-সুযোগ সুবিধা বিবিধ বিষয়ে তারা একেবারেই উদাসীন। বরং নেতারা একবার উচ্চ মহলে লবিং করতে পারলে জীবনে আর কিছু চাওয়া-পাওয়ার বাকি থাকবে না-এ স্বপ্নে বিভোর হয়ে ক্রীড়নকের মতো কাজ করে যাচ্ছে। অর্থ, ক্ষমতা, অস্ত্র, গাড়ি, বাড়ী, নারী, পটুকার অনুগত বাহিনী ইত্যাদি লাভের স্বপ্নে তারা যে কোনো অ্যাসাইনমেন্ট বাস্তবায়নে তৎপর। এতে হাজার হাজার শিক্ষার্থীর জীবন ও মূল্যবান সময় নষ্ট হলেও তাদের কিছু আসে যায় না।
আইয়ূবীয় প্রচারযন্ত্র এবং তার রাজনৈতিক চ্যালাচামুন্ডারা ছাত্র রাজনীতির বিরুদ্ধে উঠেপড়ে লেগেছিল। আইয়ূবের সামরিক জান্তা শুরুতেই সব ধরনের রাজনীতি নিষিদ্ধ করেছিল এবং রাজনীতিকদের ওপর এবডো আরোপ করেছিল। কোনো রাজনীতিক এমনকি ব্যক্তিগত কথাবার্তার মধ্যেও রাজনৈতিক আলাপ-আলোচনা করতে পারবে না। আভাসে-ইঙ্গিতেও সামরিক আইনের প্রতি কোনো প্রকার কটাক্ষ করা যাবে না, করলে অপরাধের গুরুত্ব অনুযায়ী সশ্রম কারাদন্ড এবং তৎসঙ্গে বেত্রদন্ড এমন সামরিক বিধিও ছিল। সে সময় পশ্চিম পাকিস্তানে এক তুখোড় ছাত্রনেতার আবির্ভাব ঘটেছিল। বাম প্রগতিশীল ধারার অনুসারী সেই ছাত্রনেতাটির নাম ছিল তারিক আলী। তারিক আলী কোনো এক বক্তৃতায় ছাত্র রাজনীতি সম্পর্কে সামরিক জান্তার মনোভাব নিয়ে বলতে গিয়ে বলেছিলেন, ‘এদের মাথা এমনই নিরেট যে, মাথাব্যথা হলো এরা মাথাটাই কেটে ফেলতে চায়।’

সে সময় আর একজন অত্যন্ত সাহসের সঙ্গে আইয়ূব খানের বিরুদ্ধে কথা বলেছিলেন। কিন্তু আইয়ূবের কোনো উপায় ছিল না তাঁর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার। সেই শ্রদ্ধেয় ব্যক্তিটি হচ্ছেন বিচারপতি কায়ানী। তিনি তাঁর লিখিত বক্তৃতায় বলেছিলেন, ‘সেই সামরিক সরকারের একমাত্র সাফল্য হচ্ছে নিজের দেশের মানুষের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে জয়ী হওয়া।’ আইয়ূরের প্রবর্তিত দর্শন মৌলিক গণতন্ত্রকে বিচারপতি কায়ানী এক কথায় নাকচ করে দিয়েছিলেন। এই বলে যে, ওটা মৌলিকও নয়, গণতন্ত্রও নয়। সে সময় বিচার বিভাগ প্রতিষ্ঠান হিসেবে পরবর্তীকালের মতো এতখানি নতজানু ছিল না। যাই হোক আইয়ূব যত শক্তিধরই হোক না কেন বিনা বাধায় কেল্লা ফতে করতে তিনি যে পারেননি এটাই হচ্ছে বাস্তবতা।

আজ এই পর্যন্ত প্রিয় পাঠক, লেখা চলমান থাকবে কয়েক পর্বে.....

শাহ্‌ জালাল / কামরুজ্জামান রাজু


মন্তব্য করুন

মুরাদনগরে কিশোরী অপহরণ করে মুক্তিপণ দাবির অভিযোগে উপজেলা চেয়ারম্যানের প্রধান সহচর কারাগারে 

করোনায় মৃতের দাফন করলেন যুবলীগ নেতা জুয়েলের দাফন যোদ্ধা দল

কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত পরিসরে গণপরিবহন চলবে

আজ জামাই ষষ্ঠী,মেয়ে জামাইয়ের মঙ্গল কামনাই ব্যস্ত শাশুড়িরা

ঘূর্ণিঝড় আম্পানে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম কী বার্তা দিল

মনিরামপুরে কুড়াল দিয়ে কুপিয়ে মা,বোনকে জখম করলো ছেলে

যশোরে আগামীকাল থেকে ফের খুলছে দোকানপাট

খুলছে অফিস, বন্ধ গণপরিবহন

শত কোটি টাকার মালিক হয়েও করোনায় অসহায় তারা

৩১ মে থেকে সীমিত আকারে তুলে দেয়া হচ্ছে ‘লকডাউন’

গ্রামের মানুষের একমাত্র ভরসা পল্লী চিকিৎসকরাই

মেহেরপুরে করোনায় আক্রান্ত মাকে বাড়িতে ঢুকতে দেয়নি ছেলে

কালীগঞ্জে সুপারি গাছ থেকে পড়ে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে সিয়াম!

কারাগার থেকে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র এহসান হাবিব সুমন এর খোলা চিঠি

এসএসসি পরীক্ষাঃ বাংলা দ্বিতীয় পত্রে বেশি নম্বর সহজেই...

যেকোন সময় ঘোষণা হতে পারে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটি

যশোরে এবার সরকারি চালসহ ঘাতক দালাল নিমূল কমিটির নেতা আটক

৫০ বছর ধরে দল করেও সুবিধা বঞ্চিত আ'লীগের প্রচার সম্পাদক নূরুল হক

যশোরের রাজগঞ্জে ৫৬ যুবকের উদ্যোগে ভাসমান সেতু র্নিমাণ

কেশবপুরের শাহীনের সেই ভ্যানটি উদ্ধার, আটক তিনজন

লালমনিরহাটে এক বিধবা মা বাইসাইকেল চালিয়ে ৪২ বছর স্বাস্থ্যসেবা দিচ্ছেন

নোংরা রাজনীতির শিকার যশোরের এমপি স্বপনের ছেলে শুভ

নারী সহকারীর সঙ্গে ডিসির অশ্লীল ভিডিও ভাইরাল, সংবাদ না করার অনুরোধ

ব্যাচমেট হিসেবে সাইয়েমার পক্ষে সকলের কাছে ক্ষমা চাইলেন কেশবপুরের এসিল্যাণ্ড

আপনার কাছে জনপ্রিয় খেলা কোনটা ?

  ক্রিকেট

  ফুটবল

  ভলিবল

  কাবাডি

অফিস ঠিকানা  

আর এল পোল্ট্রি, উপজেলা রোড, কেশবপুর বাজার, যশোর।
মোবাইলঃ   ০১৭১৯২৮০৮২৭
ইমেইলঃ   info@kopotakkhonews24.com

প্রকাশক ও সম্পাদক 

মোঃ মাহাবুবুর রহমান (মাহাবুর)

মোবাইলঃ   ০১৭১৯২৮০৮২৭
ইমেইলঃ   info@kopotakkhonews24.com

সোশ্যাল মিডিয়ায় আমরা