আজ বুধবার, ১৮ মে ২০২২, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯           আমাদের কথা    যোগাযোগ

শিরোনাম

  প্রতিনিধি হইতে ইচ্ছুকরা ০১৭৪৭৬০৪৮১৫ নাম্বারে যোগাযোগ করুন।  

পানির নিচে কৃষকের স্বপ্ন, এক মণ ধানেও পাওয়া যাচ্ছে না শ্রমিক


পানির নিচে কৃষকের স্বপ্ন, এক মণ ধানেও পাওয়া যাচ্ছে না শ্রমিক

প্রকাশিতঃ বৃহস্পতিবার, মে ১২, ২০২২   পঠিতঃ 15687


টাঙ্গাইলে দুই দিনের টানা বৃষ্টিতে নিম্নাঞ্চলের বোরো ধান তলিয়ে গেছে। এতে ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন কৃষকরা। পাশাপাশি ধান কাটার শ্রমিক না পাওয়ায় তলিয়ে যাওয়া ধান ক্ষেতেই পচে নষ্ট হচ্ছে। 

তবে কৃষি বিভাগের দাবি, আগে থেকে ধান কাটা শুরু হওয়ায় জেলায় ঘূর্ণিঝড় অশনির তেমন প্রভাব পড়েনি। ফলে নষ্ট হয়নি কৃষকের বোরো ধান।

জেলার ভূঞাপুর উপজেলার কয়েড়া গ্রামের কৃষক বাদশা মিয়া (৫৫)। ক্ষেতে তলিয়ে যাওয়া ধান কাঁচি দিয়ে টেনে টেনে তুলে কাটছেন আর আক্ষেপ করছেন। তিনি বলেন, ঈদের আগেই যদি ধানগুলো কাটা হতো, তাহলে হয়ত ক্ষতির মুখে পড়তে হতো না।

Dhaka post

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, টাঙ্গাইলের ১২ উপজেলায় এ বছর ১ লাখ ৭১ হাজার ৫০০ হেক্টর জমিতে বোরো ধানের আবাদ হয়েছে। আর উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৭ লাখ ৩০ হাজার ৭৬৬ মেট্রিক টন। ২৮, ২৯ জাতের বোরো ধান কর্তন প্রায় শেষে দিকে। এ ছাড়া বিভিন্ন জাতের বোরো ধান ৬০ ভাগ পেকে গেছে। জেলায় ১৫০টি হারভেস্টার মেশিন দিয়ে ধান কাটা হচ্ছে। ইতোমধ্যে ৩০ শতাংশ জমির ধান কাটা হয়েছে।

জানা গেছে, জেলায় এ বছর বোরো ধানের আবাদ ভালো হলেও ঘুর্ণিঝড় অশনির প্রভাবে ঝোড়ো হাওয়া ও বৃষ্টিতে নিম্নাঞ্চলের উপজেলাগুলোতে ধানের ক্ষতি হয়েছে। টানা বৃষ্টি হওয়ায় ক্ষেতে পানি জমে ধান তলিয়ে গেছে। এ ছাড়া ধান কাটতে শ্রমিক প্রতি গুনতে হচ্ছে ৯০০-১০০০ টাকা। আর বাজারে ধানের দাম ৭০০-৮০০ টাকা মণ। ফলে এক মণ ধানের বিনিময়ে শ্রমিক পাচ্ছে না কৃষকরা। 

কয়েড়া গ্রামের কৃষক বাদশা মিয়া বলেন, গেল রোজার শেষের দিকে জমির ধান পেকেছিল। ধান কাটবো কাটবো করে আর কাটা হয়নি। এর মধ্যে টানা বৃষ্টি শুরু হয়ে ক্ষেতে হাঁটু পানি জমে ধান তলিয়ে গেছে। দ্রুত যে ধান কাটব সে উপায় নেই।

ভূঞাপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ ড. হুমায়ুন কবীর বলেন, উপজেলায় ইতোমধ্যে ৪৫ শতাংশ জমির ধান কাটা হয়েছে। বাকি ধান কাটার অপেক্ষায় ছিল। তবে দুই দিনের বৃষ্টি আর অশনির প্রভাবে কিছু ধান শুয়ে পড়েছে। কিন্তু ধানের কোনো ক্ষতি হয়নি। তারপরও ধান কাটা অব্যাহত রয়েছে। আবহাওয়া ভালো হওয়ার পাশাপাশি কৃষকরা বৃষ্টি উপেক্ষা করে যদি ধান কাটতে পারে, তাহলে আগামী ১০-১২ দিনের মধ্যে ধান কাটা শেষ হবে।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ মো. আহসানুল বাশার বলেন, অশনিতে ফসলের কোনো ক্ষতি হয়নি। জেলার ভূঞাপুর, নাগরপুর, টাঙ্গাইল সদর, দেলদুয়ার ও বাসাইল উপজেলার নিম্নাঞ্চলের ৫০ ভাগ জমির ধানে দুই দিনের বৃষ্টির পানি প্রবেশ করেছে। এতে জমির ধান শুয়ে পড়লেও কোনো ক্ষতি হয়নি।

ইসরাফিল হোসেন / ইসরাফিল হোসেন


মন্তব্য করুন

কালীগঞ্জে সুপারি গাছ থেকে পড়ে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে সিয়াম!

কারাগার থেকে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র এহসান হাবিব সুমন এর খোলা চিঠি

এসএসসি পরীক্ষাঃ বাংলা দ্বিতীয় পত্রে বেশি নম্বর সহজেই...

যেকোন সময় ঘোষণা হতে পারে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটি

যশোরে এবার সরকারি চালসহ ঘাতক দালাল নিমূল কমিটির নেতা আটক

লালমনিরহাটে এক বিধবা মা বাইসাইকেল চালিয়ে ৪২ বছর স্বাস্থ্যসেবা দিচ্ছেন

৫০ বছর ধরে দল করেও সুবিধা বঞ্চিত আ'লীগের প্রচার সম্পাদক নূরুল হক

নোংরা রাজনীতির শিকার যশোরের এমপি স্বপনের ছেলে শুভ

যশোরের রাজগঞ্জে ৫৬ যুবকের উদ্যোগে ভাসমান সেতু র্নিমাণ

কেশবপুরের শাহীনের সেই ভ্যানটি উদ্ধার, আটক তিনজন

ব্যাচমেট হিসেবে সাইয়েমার পক্ষে ক্ষমা চাইলেন কেশবপুরের এসিল্যান্ড

নারী সহকারীর সঙ্গে ডিসির অশ্লীল ভিডিও ভাইরাল, সংবাদ না করার অনুরোধ

আমাদের নিউজ পোর্টাল আপনার কেমন লাগে ?

  খুব ভালো

  ভালো

  খুব ভালো না

  ভালো লাগে না

অফিস ঠিকানা  

আর এল পোল্ট্রি, উপজেলা রোড, কেশবপুর বাজার, যশোর।
মোবাইলঃ   ০১৭১৯২৮০৮২৭
ইমেইলঃ   info@kopotakkhonews24.com

প্রকাশক ও সম্পাদক 

মোঃ মাহাবুবুর রহমান (মাহাবুর)

মোবাইলঃ   ০১৭১৯২৮০৮২৭
ইমেইলঃ   info@kopotakkhonews24.com

সোশ্যাল মিডিয়ায় আমরা