আজ বুধবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬           আমাদের কথা    যোগাযোগ
Owner

শিরোনাম

  জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল কপোতাক্ষ নিউজের জন্য বাংলাদেশের প্রতিটি জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। আগ্রহী প্রার্থীরা ০১৭১৯২৮০৮২৭ নাম্বারে যোগাযোগ করুন।  

রাষ্ট্রপতি ভবনের পিছনদিকে রহস্যময় গুহা!


রাষ্ট্রপতি ভবনের পিছনদিকে রহস্যময় গুহা!

প্রকাশিতঃ মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৬   পঠিতঃ 77112


শনিবার রাতে নয়াদিল্লির রাষ্ট্রপতি ভবনের পিছনদিকে বিজি লাইনসে টহলরত একটি পিসিআর ভ্যানের এক পুলিশকর্মী দেখেন, রাষ্ট্রপতি ভবনের পিছন দিকের পাঁচিল টপকে ঢুকে পড়ছেন দু’জন। সঙ্গে সঙ্গে কন্ট্রোলরুমকে সতর্ক করেন ওই পুলিশকর্মী। রাষ্ট্রপতি ভবনে জঙ্গি হামলা হতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেন তিনি। সঙ্গে সঙ্গে নিরাপত্তা এজেন্সিগুলির মধ্যে শোরগোল পড়ে যায়। শুরু হয় তল্লাশি। শেষ পর্যন্ত এই তল্লাশিতে যা পাওয়া গেল, তাতে রীতিমতো চক্ষু ছানাবড়া হয়ে গিয়েছে পুলিশকর্তা এবং নিরাপত্তা এজেন্সির অফিসারদের। তল্লাশি চলাকালীন রাষ্ট্রপতি ভবনের পিছন দিকে জঙ্গলের মধ্যে প্রথমে একটি মাজারের খোঁজ পাওয়া যায়। তার পাশেই ছিল একটি রহস্যজনক গুহা। আর সেই গুহায় যাঁরা বাস করতেন, তাঁদের দু’জনের নাম গাজি নুরুল ইসলাম(৬৮) এবং মহম্মদ নুর(৪০)। সম্পর্কে তাঁরা বাবা এবং ছেলে। গাজি নুরুলের দাবি, তিনি চল্লিশ বছর ধরে ওই গুহায় বসবাস করছেন। গুহা সংলগ্ন মাজারে যে প্রণামী জমা পড়ে, তা দিয়েই দিন গুজরান হয় বাবা এবং ছেলের। ওই গুহাটিও নাকি মুঘল আমলের। দু’জনকেই আটক করে দীর্ঘক্ষণ জিজ্ঞাসাবাদ চালায় পুলিশ। ওই বৃদ্ধ দাবি করেন, তাঁর আদি বাড়ি উত্তরপ্রদেশে। কিন্তু দীর্ঘদিন ধরেই তিনি রাষ্ট্রপতি ভবনের নাকের ডগায় এই গুহায় বসবাস করেন। বাইরে বেরোতে হলে রাষ্ট্রপতি ভবনের পিছনদিকের রাস্তা দিয়ে পাঁচিল টপকেই তাঁরা যাতায়াত করেন। কিন্তু এই দাবি যদি সত্যি হয়, তাহলে এতদিন কীভাবে কড়া নিরাপত্তার ঘেরাটোপে থাকা রাষ্ট্রপতি ভবনের কোনও নিরাপত্তাকর্মীর নজরে তাঁরা পড়লেন না, সেই প্রশ্ন উঠছে। পুলিশ স্বীকার করে নিয়েছে, রাষ্ট্রপতি ভবনের পিছনের জঙ্গলের মধ্যে যে মাজার রয়েছে, তাও জানত না পুলিশ। তবে রাষ্ট্রপতি ভবনের পিছনের জঙ্গলে এমন মাজার অবশ্য আরও রয়েছে। তার একটির মধ্যে এক ইরানি ভাই এবং বোন দীর্ঘদিন ধরেই বসবাস করেন বলে পুলিশকে উদ্ধৃত করে দাবি করেছে একটি সংবাদমাধ্যম। যদিও, এই রহস্যজনক গুহা বা তার ভিতরে বসবাসকারী বাবা-ছেলের কথা কেউই জানতেন না। তবে জেরা করার পরে অবশ্য গাজি নুরুল ইসলাম এবং তাঁর ছেলে মহম্মদ নুরকে ছেড়ে দিয়েছে পুলিশ।

মোঃ ইসরাফিল হোসেন / মোঃ মাহাবুবুর রহমান (মাহাবুর)


মন্তব্য করুন

ইতিহাসের বড় মানবাধিকার লঙ্ঘন বঙ্গবন্ধুর খুনিদের রক্ষা করা

মহেশপুরের অবৈধ ইটভাটায় পুড়ছে শত শত মণ কাঠ

জাল বিছানো হয়েছে, কখন কে ধরা পড়ে বলা মুশকিল: কাদের

নাটোরে মানবাধিকার দিবস উপলক্ষে র‍্যালি ও আলোচনা সভা

নাটোরের সিংড়ায় পানিতে ডুবে দুই শিশু মূত্যু

বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ "জোছনা উৎসব" বরগুনায়

নাটোরে বাউয়েট ক্যাম্পাসে দরিদ্র ও শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ

রুহুল আমিন মোহাম্মদ ফারুকী এর কবিতা "উত্তরহীন প্রশ্ন"

কাল থেকে শুরু ‘বঙ্গবন্ধু বিপিএল’ লড়াই

রুম্পার মৃত্যুরহস্য উদঘাটনে এখনও অন্ধকারেই পুলিশ

যাদের নিয়ে আওয়ামী লীগ বিব্রত

সুপ্রিয় ভট্টাচার্য্য যশোরের শ্রেষ্ঠ করদাতা

কালীগঞ্জে সুপারি গাছ থেকে পড়ে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে সিয়াম!

কারাগার থেকে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র এহসান হাবিব সুমন এর খোলা চিঠি

যেকোন সময় ঘোষণা হতে পারে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটি

এসএসসি পরীক্ষাঃ বাংলা দ্বিতীয় পত্রে বেশি নম্বর সহজেই...

৫০ বছর ধরে দল করেও সুবিধা বঞ্চিত আ'লীগের প্রচার সম্পাদক নূরুল হক

যশোরের রাজগঞ্জে ৫৬ যুবকের উদ্যোগে ভাসমান সেতু র্নিমাণ

কেশবপুরের শাহীনের সেই ভ্যানটি উদ্ধার, আটক তিনজন

নোংরা রাজনীতির শিকার যশোরের এমপি স্বপনের ছেলে শুভ

লালমনিরহাটে এক বিধবা মা বাইসাইকেল চালিয়ে ৪২ বছর স্বাস্থ্যসেবা দিচ্ছেন

নারী সহকারীর সঙ্গে ডিসির অশ্লীল ভিডিও ভাইরাল, সংবাদ না করার অনুরোধ

আমি চাই আমাকে দেখে আর দশটা মেয়ে সমাজে প্রতিষ্ঠিত হোক - শ্রাবন্তী অনন্যা

বিএনপি নেতা আবু বকর আবু’র জানাজায় হাজারো মানুষের ঢল

আপনার কাছে জনপ্রিয় খেলা কোনটা ?

  ক্রিকেট

  ফুটবল

  ভলিবল

  কাবাডি

অফিস ঠিকানা  

আর এল পোল্ট্রি, উপজেলা রোড, কেশবপুর বাজার, যশোর।
মোবাইলঃ   ০১৭১৯২৮০৮২৭
ইমেইলঃ   info@kopotakkhonews24.com

প্রকাশক ও সম্পাদক 

মোঃ মাহাবুবুর রহমান (মাহাবুর)

মোবাইলঃ   ০১৭১৯২৮০৮২৭
ইমেইলঃ   info@kopotakkhonews24.com

সোশ্যাল মিডিয়ায় আমরা